ঢাকা ১০:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টিভিতে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে গিয়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ভোলার লালমোহন উপজেলায় টিভিতে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মো. শাখাওয়াত হোসেন নামে ১৮ বছর বয়সি এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে লালমোহন পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের নাডা বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

মৃত শাখাওয়াত ওই বাড়ির মো. সিরাজের ছেলে। তিনি লালমোহন ইসলামিয়া কামিল মাদ্রাসার আলিম প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

জানা গেছে, ঘরে থাকা টিভিতে বিদ্যুৎসংযোগ দিতে যায় শিক্ষার্থী শাখাওয়াত। এ সময় অসাবধানতাবশত বিদ্যুতায়িত হয়ে পড়েন তিনি। বিষয়টি পরিবারের লোকজন বুঝতে পেরে তাকে উদ্ধার করে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন। সেখানের কর্তব্যরত চিকিৎসক শিক্ষার্থী শাখাওয়াতের শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে লালমোহন থানার ওসি এসএম মাহবুব উল আলম বলেন, খবর পেয়ে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেছে। তবে কোনো অভিযোগ না থাকায় ওই শিক্ষার্থীর মরদেহ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

Tag :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

টিভিতে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে গিয়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু

আপডেট সময় ১২:৩৬:০১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪

ভোলার লালমোহন উপজেলায় টিভিতে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মো. শাখাওয়াত হোসেন নামে ১৮ বছর বয়সি এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে লালমোহন পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের নাডা বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

মৃত শাখাওয়াত ওই বাড়ির মো. সিরাজের ছেলে। তিনি লালমোহন ইসলামিয়া কামিল মাদ্রাসার আলিম প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

জানা গেছে, ঘরে থাকা টিভিতে বিদ্যুৎসংযোগ দিতে যায় শিক্ষার্থী শাখাওয়াত। এ সময় অসাবধানতাবশত বিদ্যুতায়িত হয়ে পড়েন তিনি। বিষয়টি পরিবারের লোকজন বুঝতে পেরে তাকে উদ্ধার করে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন। সেখানের কর্তব্যরত চিকিৎসক শিক্ষার্থী শাখাওয়াতের শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে লালমোহন থানার ওসি এসএম মাহবুব উল আলম বলেন, খবর পেয়ে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেছে। তবে কোনো অভিযোগ না থাকায় ওই শিক্ষার্থীর মরদেহ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।