ঢাকা ০৬:৩৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতা চয়ন গ্রেফতার

রাজধানীর উত্তরায় সাংবাদিক হুমায়ুন কবিরের উপর হামলার ঘটনায়, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ চয়ন খানকে সোমবার রাতে গ্রেফতার করেছে উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশ।
বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে উত্তরা তিন নাম্বার সেক্টরের একটি রেস্টুরেন্টে খাবার খেতে যায় হুমায়ুন কবির তাকে অনুসরণ করে ১০-১৫ জনের সন্ত্রাসী বাহিনী পাশের টেবিলে বসে তার সাথে অযথা বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে একপর্যায়ে এক নম্বর আসামি চায়ন খান তার হাতে থাকা কাচের গ্লাস দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে সজোরে বাদীর মাথায় আঘাত করে। তার সাথে থাকা ১০-১২ জন সন্ত্রাসী বাহিনী তারাও তাকে সহযোগিতা করে। মাথা ফেটে রক্তাক্ত হয়ে গেলে রেস্টুরেন্টের কর্মচারীরা তাকে নিয়ে দ্রুত নিচে নামে নিচে থাকা আরো ১০-১২ জন সন্ত্রাসী গ্রুপ তার উপর আবার হামলা চালিয়ে পালিয়ে যায়। রাস্তায় থাকা পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মাথায় সেলাই দিয়ে বেডে প্রেরণ করে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সাব্বির জানান, নিয়মিত মামলা রুজু হয়েছে মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই তাকে গ্রেফতার করে মঙ্গলবার কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে অভিযোগকারী জানায়, আমার ধারণা গত এপ্রিল মাসে বেশ কিছু গণমাধ্যমে বার ক্লাব সিসা লাউস নিয়ে কিছু সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতাই কোন ক্ষমতাসীন ব্যবসায়িক মহল ভাড়াটিয়া গুন্ডা হিসেবে ব্যবহার করে আসামির চয়নকে দিয়ে আমার উপর এই হামলা চালিয়েছে । বাকিটা মামলার তদন্তে বেরিয়ে আসবে।

Tag :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

জাফলং সহ গোয়াইনঘাটের সবকটি পর্যটন কেন্দ্র খুলে দেওয়া হল

সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতা চয়ন গ্রেফতার

আপডেট সময় ১২:০৫:৪৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪

রাজধানীর উত্তরায় সাংবাদিক হুমায়ুন কবিরের উপর হামলার ঘটনায়, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ চয়ন খানকে সোমবার রাতে গ্রেফতার করেছে উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশ।
বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে উত্তরা তিন নাম্বার সেক্টরের একটি রেস্টুরেন্টে খাবার খেতে যায় হুমায়ুন কবির তাকে অনুসরণ করে ১০-১৫ জনের সন্ত্রাসী বাহিনী পাশের টেবিলে বসে তার সাথে অযথা বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে একপর্যায়ে এক নম্বর আসামি চায়ন খান তার হাতে থাকা কাচের গ্লাস দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে সজোরে বাদীর মাথায় আঘাত করে। তার সাথে থাকা ১০-১২ জন সন্ত্রাসী বাহিনী তারাও তাকে সহযোগিতা করে। মাথা ফেটে রক্তাক্ত হয়ে গেলে রেস্টুরেন্টের কর্মচারীরা তাকে নিয়ে দ্রুত নিচে নামে নিচে থাকা আরো ১০-১২ জন সন্ত্রাসী গ্রুপ তার উপর আবার হামলা চালিয়ে পালিয়ে যায়। রাস্তায় থাকা পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মাথায় সেলাই দিয়ে বেডে প্রেরণ করে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সাব্বির জানান, নিয়মিত মামলা রুজু হয়েছে মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই তাকে গ্রেফতার করে মঙ্গলবার কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে অভিযোগকারী জানায়, আমার ধারণা গত এপ্রিল মাসে বেশ কিছু গণমাধ্যমে বার ক্লাব সিসা লাউস নিয়ে কিছু সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতাই কোন ক্ষমতাসীন ব্যবসায়িক মহল ভাড়াটিয়া গুন্ডা হিসেবে ব্যবহার করে আসামির চয়নকে দিয়ে আমার উপর এই হামলা চালিয়েছে । বাকিটা মামলার তদন্তে বেরিয়ে আসবে।