ঢাকা ০৪:৫২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

ভোলার লালমোহনে অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচনের দাবীতে চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংবাদ সম্মেলন

  • রিয়াজ ফরাজি
  • আপডেট সময় ০৮:৪৩:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মে ২০২৪
  • ৫৩৮ বার পড়া হয়েছে

দলীয় প্রভাব খাটানো, নির্বাচনী আচরন বিধি লঙ্ঘন করা, ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শন এবং প্রচার প্রচারনায় নেতা কর্মীদের উপর হামলার প্রতিবাদে ও অবাধ সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভোলার লালমোহন উপজেলার বিএনপির সাবেক নেতা, তৃতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে দোয়াত কলম প্রতীকের প্রার্থী মোঃ আখতারুজ্জামান টিটব।

বুধবার (১৫ মে) বিকালে লালমোহন বাজারে নির্বাচনী কার্যালয়ে তিনি এ সংবাদ সম্মেলন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারম্যান প্রার্থী টিটব তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি, শালীক পাখী প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আখতার হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, তিনি এবং তার নেতা কর্মীরা বিভিন্ন সভা সমাবেশে প্রকাশ্যে আমার নেতা কর্মীদের হুমকি ধামকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় ১৪ মে ডাওরী বাজারে আমার কর্মীদের উপর ৪০/৫০ জন অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। সে হামলায় আমার ৭/৮ জন নেতা কর্মী মারাত্মক আহত হয়। এদের মধ্যে গুরুতর আহত শামীম ও সালাউদ্দিনকে লালমোহন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়াও তার সমর্থকদের হামলায় ৪/৫টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমি আপনাদের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও নির্বাচনের আচরণ বিধি বাস্তবায়ন সহ অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবী জানাই।

তৃতীয় ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোলার লালমোহন উপজেলা নির্বাচনে ৩ পদে ১৩ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল করেছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৭ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন প্রার্থী মনোনয়ন দাখিল করেছেন।

অভিযোগের বিষয়ে অভিযুক্ত চেয়ারম্যান প্রার্থী আকতার হোসেন বলেন এ বিষয়ে আমার কোন মন্তব্য নেই।

গত ১৭ এপ্রিল তৃতীয় ধাপের ১১২টি উপজেলা পরিষদের নির্বাচনের তপসিল ঘোষণা করেছিল ইসি। তফসিল অনুযায়ী, প্রথম ধাপে ১৪৫টির মতো উপজেলায় ৮ মে ভোট হয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে ১৬০ উপজেলায় ২১ মে, তৃতীয় ধাপে ১১২ উপজেলায় ২৯ মে ও চতুর্থ ধাপে ৫৫ উপজেলায় ৫ জুন ভোটগ্রহণ হওয়ার কথা রয়েছে।

উল্লেখ্য, এবার চার ধাপে উপজেলার ভোট হচ্ছে। এর মধ্যে প্রথম ধাপে ১৩৯ উপজেলায় ভোট হয়; পরবর্তী সময় দ্বিতীয় ধাপে ১৫৯ উপজেলার ভোটগ্রহণ ২১ মে; তৃতীয় ধাপের ১১২ উপজেলায় ভোটগ্রহণ ২৯ মে এবং চতুর্থ ধাপে ৫৫ উপজেলায় ভোট হবে ৫ জুন।

Tag :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

পুলিশে আরও রদবদল, এক অতিরিক্ত আইজিপি ও ৯ ডিআইজি বদলি

ভোলার লালমোহনে অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচনের দাবীতে চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংবাদ সম্মেলন

আপডেট সময় ০৮:৪৩:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মে ২০২৪

দলীয় প্রভাব খাটানো, নির্বাচনী আচরন বিধি লঙ্ঘন করা, ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শন এবং প্রচার প্রচারনায় নেতা কর্মীদের উপর হামলার প্রতিবাদে ও অবাধ সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভোলার লালমোহন উপজেলার বিএনপির সাবেক নেতা, তৃতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে দোয়াত কলম প্রতীকের প্রার্থী মোঃ আখতারুজ্জামান টিটব।

বুধবার (১৫ মে) বিকালে লালমোহন বাজারে নির্বাচনী কার্যালয়ে তিনি এ সংবাদ সম্মেলন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারম্যান প্রার্থী টিটব তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি, শালীক পাখী প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আখতার হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, তিনি এবং তার নেতা কর্মীরা বিভিন্ন সভা সমাবেশে প্রকাশ্যে আমার নেতা কর্মীদের হুমকি ধামকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় ১৪ মে ডাওরী বাজারে আমার কর্মীদের উপর ৪০/৫০ জন অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। সে হামলায় আমার ৭/৮ জন নেতা কর্মী মারাত্মক আহত হয়। এদের মধ্যে গুরুতর আহত শামীম ও সালাউদ্দিনকে লালমোহন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়াও তার সমর্থকদের হামলায় ৪/৫টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমি আপনাদের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও নির্বাচনের আচরণ বিধি বাস্তবায়ন সহ অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবী জানাই।

তৃতীয় ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোলার লালমোহন উপজেলা নির্বাচনে ৩ পদে ১৩ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল করেছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৭ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন প্রার্থী মনোনয়ন দাখিল করেছেন।

অভিযোগের বিষয়ে অভিযুক্ত চেয়ারম্যান প্রার্থী আকতার হোসেন বলেন এ বিষয়ে আমার কোন মন্তব্য নেই।

গত ১৭ এপ্রিল তৃতীয় ধাপের ১১২টি উপজেলা পরিষদের নির্বাচনের তপসিল ঘোষণা করেছিল ইসি। তফসিল অনুযায়ী, প্রথম ধাপে ১৪৫টির মতো উপজেলায় ৮ মে ভোট হয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে ১৬০ উপজেলায় ২১ মে, তৃতীয় ধাপে ১১২ উপজেলায় ২৯ মে ও চতুর্থ ধাপে ৫৫ উপজেলায় ৫ জুন ভোটগ্রহণ হওয়ার কথা রয়েছে।

উল্লেখ্য, এবার চার ধাপে উপজেলার ভোট হচ্ছে। এর মধ্যে প্রথম ধাপে ১৩৯ উপজেলায় ভোট হয়; পরবর্তী সময় দ্বিতীয় ধাপে ১৫৯ উপজেলার ভোটগ্রহণ ২১ মে; তৃতীয় ধাপের ১১২ উপজেলায় ভোটগ্রহণ ২৯ মে এবং চতুর্থ ধাপে ৫৫ উপজেলায় ভোট হবে ৫ জুন।