ঢাকা ০৪:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বোরহানউদ্দিনের কাচিয়া ইউনিয়নে

ভূমিদস্যু আলমগীর মুন্সি কর্তৃক জোরপূর্বক জমি দখল

ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার কাচিয়া ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের জোরপূর্বক জমি দখলের অভিযোগ পাওয়া যায়, আলমগীর মুন্সির বিরুদ্ধে। তিনি কাঁচিয়া ৫ নং ওয়ার্ডের আলমগীর মুন্সী পিতা মৃত এয়াছিন মুন্সি সাং ফুলকাচিয়া ৫ নং ওয়ার্ড মুন্সিবাড়ি। আলমগীর মুন্সী মোঃ নান্টুর ৩১ শতাংশ জমি নিজের বলে দাবি করে। নান্টু বলেন আলমগীর মুন্সি এভাবে আরো পাঁচ জনের জমি দখল করে আছ। তারা সর্বমোট পাঁচজনই বোরহানউদ্দিন  থানায় অভিযোগ দায়ের করে ।

নান্টু মিয়ার পরিচয় সূত্র মোঃ নান্টু (৪৫), পিতা- মৃত লাল মিয়া, সাং-ফুল কাচিয়া ০৪ নং ওয়ার্ড, থানাঃ বোরহানউদ্দিন, জেলা: ভোলা।  নান্টু বলেন আমরা বহু বছর যাবত আমাদের জমি ভোগ করে আসতেছি  এই মর্মে থানায় হাজির হইয়া আলমগীর মুন্সির বিরুদ্ধে লিখিত ভাবে অভিযোগ দায়ের ও করেছি। আমরা সরকারি বন্দোবস্ত দলিল মূলে ফুল কাচিয়া মৌজার ৫৭নং জে.এল ভুক্ত এস.এ ৯১২ নং খতিয়ানের ৩৮৯০/১, ৩৮৯১/১, ৩৮৯৬/১, ৩৮৯৭/১, ৩৮৯৯/১, ৩৯০১/১, ৩৯৩০/১, ৩১৩১/১ নং দাগ ভুক্ত ৩১ (একত্রিশ) শতাংশ জমির মালিক বটে। দীর্ঘ ৩০ বছর যাবৎ উক্ত সম্পত্তি সরকারি খাজনাদি আমরা পরিশোধ করিয়া আসিতেছি। আমার পিতার জীবদ্দশায় বিবাদীর নিকট উক্ত ৩১ শতাংশ জমি বর্গ ছিল। কিন্তু আমার পিতার মৃত্যুর পর বিবাদী উক্ত ৩১ শতাংশ জমি তাহার নিজের বলিয়া দাবী করিয়া আসিতেছে। আমরা আমাদের জমি নিজেরা চাষ করিতে চাহিলে বিবাদী জমিতে যাইতে দেয় না। বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকি দিয়া আসিতেছে। বিবাদীকে জমি ছাড়িয়া দিতে বলিলে গালিগালাজ করে এবং জমি ছাড়িবে না বলিয়া বিভিন্ন ধরনের ভীতিকর হুমকি ধামকি দেয় উক্ত বিষয়টি নিয়া স্থানীয় ভাবে মিমাংসার চেষ্টা করি। বিবাদী আলমগীর মুন্সী  কোন মিমাংসা মানে না আইন কানুনের তোয়াক্কা করে না। ১২/০৫/২০২৩ইং তারিখে সকাল অনুমান ৯:৩০ ঘটিকায় আমি আমার উক্ত সম্পত্তিতে গেলে বিবাদী আসিয়া আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং লাঠিসোঠা নিয়া মারধর করিতে আসে।স্থানীয়  লোকজন আসিয়া আলমগীরের  হাত হইতে আমাকে উদ্ধার করে। সে জন সম্মুখে আমাকে খুন জখমের হুমকি দেয় এবং  জমি দখল দিবে না, বলিয়া জানায়। আমি উক্ত বিষয়টি এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে জানাইয়া তাহাদের পরামর্শে আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হই।

এ প্রসঙ্গে বোরহানউদ্দিন  থানা থেকে দারোগা সাহেব আসেন এবং আগামী ১৯/০৫/২০২৩ ই তারিখ শুক্রবার থানায় দুই পক্ষকে নিয়ে মীমাংসা করবেন বলে জানান।

উক্ত ঘটনা প্রসঙ্গে আলমগীর মুন্সি বলেন আমি কারো জমি দখল করতে চাই না কারো জমি দখল করতে চাই না। আমার কাছে ওই জমির দলিল আছে আমি যদি সালিশিতে জমি পাই তাহলে নিব না পাইলে নিব না।থানার দারোগা সাহেব শুক্রবারে সালিশির  তারিখ দিয়েছেন।

নান্টু মিয়া গণমাধ্যম কর্মীদের মাধ্যমে স্থানীয় প্রশাসনের কাছে, তার সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনা হুমকি ধামকি সহ নিজের জমি ফেরত চান।

আমাদের মাতৃভূমি/মাজহারুল

Tag :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

পুলিশে আরও রদবদল, এক অতিরিক্ত আইজিপি ও ৯ ডিআইজি বদলি

বোরহানউদ্দিনের কাচিয়া ইউনিয়নে

ভূমিদস্যু আলমগীর মুন্সি কর্তৃক জোরপূর্বক জমি দখল

আপডেট সময় ১২:৪৬:১৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ মে ২০২৩

ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার কাচিয়া ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের জোরপূর্বক জমি দখলের অভিযোগ পাওয়া যায়, আলমগীর মুন্সির বিরুদ্ধে। তিনি কাঁচিয়া ৫ নং ওয়ার্ডের আলমগীর মুন্সী পিতা মৃত এয়াছিন মুন্সি সাং ফুলকাচিয়া ৫ নং ওয়ার্ড মুন্সিবাড়ি। আলমগীর মুন্সী মোঃ নান্টুর ৩১ শতাংশ জমি নিজের বলে দাবি করে। নান্টু বলেন আলমগীর মুন্সি এভাবে আরো পাঁচ জনের জমি দখল করে আছ। তারা সর্বমোট পাঁচজনই বোরহানউদ্দিন  থানায় অভিযোগ দায়ের করে ।

নান্টু মিয়ার পরিচয় সূত্র মোঃ নান্টু (৪৫), পিতা- মৃত লাল মিয়া, সাং-ফুল কাচিয়া ০৪ নং ওয়ার্ড, থানাঃ বোরহানউদ্দিন, জেলা: ভোলা।  নান্টু বলেন আমরা বহু বছর যাবত আমাদের জমি ভোগ করে আসতেছি  এই মর্মে থানায় হাজির হইয়া আলমগীর মুন্সির বিরুদ্ধে লিখিত ভাবে অভিযোগ দায়ের ও করেছি। আমরা সরকারি বন্দোবস্ত দলিল মূলে ফুল কাচিয়া মৌজার ৫৭নং জে.এল ভুক্ত এস.এ ৯১২ নং খতিয়ানের ৩৮৯০/১, ৩৮৯১/১, ৩৮৯৬/১, ৩৮৯৭/১, ৩৮৯৯/১, ৩৯০১/১, ৩৯৩০/১, ৩১৩১/১ নং দাগ ভুক্ত ৩১ (একত্রিশ) শতাংশ জমির মালিক বটে। দীর্ঘ ৩০ বছর যাবৎ উক্ত সম্পত্তি সরকারি খাজনাদি আমরা পরিশোধ করিয়া আসিতেছি। আমার পিতার জীবদ্দশায় বিবাদীর নিকট উক্ত ৩১ শতাংশ জমি বর্গ ছিল। কিন্তু আমার পিতার মৃত্যুর পর বিবাদী উক্ত ৩১ শতাংশ জমি তাহার নিজের বলিয়া দাবী করিয়া আসিতেছে। আমরা আমাদের জমি নিজেরা চাষ করিতে চাহিলে বিবাদী জমিতে যাইতে দেয় না। বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকি দিয়া আসিতেছে। বিবাদীকে জমি ছাড়িয়া দিতে বলিলে গালিগালাজ করে এবং জমি ছাড়িবে না বলিয়া বিভিন্ন ধরনের ভীতিকর হুমকি ধামকি দেয় উক্ত বিষয়টি নিয়া স্থানীয় ভাবে মিমাংসার চেষ্টা করি। বিবাদী আলমগীর মুন্সী  কোন মিমাংসা মানে না আইন কানুনের তোয়াক্কা করে না। ১২/০৫/২০২৩ইং তারিখে সকাল অনুমান ৯:৩০ ঘটিকায় আমি আমার উক্ত সম্পত্তিতে গেলে বিবাদী আসিয়া আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং লাঠিসোঠা নিয়া মারধর করিতে আসে।স্থানীয়  লোকজন আসিয়া আলমগীরের  হাত হইতে আমাকে উদ্ধার করে। সে জন সম্মুখে আমাকে খুন জখমের হুমকি দেয় এবং  জমি দখল দিবে না, বলিয়া জানায়। আমি উক্ত বিষয়টি এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে জানাইয়া তাহাদের পরামর্শে আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হই।

এ প্রসঙ্গে বোরহানউদ্দিন  থানা থেকে দারোগা সাহেব আসেন এবং আগামী ১৯/০৫/২০২৩ ই তারিখ শুক্রবার থানায় দুই পক্ষকে নিয়ে মীমাংসা করবেন বলে জানান।

উক্ত ঘটনা প্রসঙ্গে আলমগীর মুন্সি বলেন আমি কারো জমি দখল করতে চাই না কারো জমি দখল করতে চাই না। আমার কাছে ওই জমির দলিল আছে আমি যদি সালিশিতে জমি পাই তাহলে নিব না পাইলে নিব না।থানার দারোগা সাহেব শুক্রবারে সালিশির  তারিখ দিয়েছেন।

নান্টু মিয়া গণমাধ্যম কর্মীদের মাধ্যমে স্থানীয় প্রশাসনের কাছে, তার সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনা হুমকি ধামকি সহ নিজের জমি ফেরত চান।

আমাদের মাতৃভূমি/মাজহারুল