ঢাকা ০৬:৩১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

পাকিস্তানে প্রবাসী আয়ে রেকর্ড

এক মাসে ৩০০ কোটি ডলারের বেশি প্রবাসী আয় পেল পাকিস্তান। চলতি বছরের মে মাসে ৩ দশমিক ২৪৩ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন পাকিস্তানের প্রবাসীরা। যা এক বছর আগের তুলনায় ৫৪ দশমিক দুই শতাংশ বেশি।

শুক্রবার পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রকাশিত তথ্যে এমন বৃদ্ধি দেখা যায়। মূলত ঈদুল আজহা ও রুপির স্থিতিশীলতার কারণে প্রবাসী আয় বেড়েছে।

গত বছরের মে মাসে দেশটির প্রবাসীরা ২ দশমিক ১০৩ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়ে ছিল। এ বছরের এপ্রিলে দেশটির প্রবাসী আয় ছিল ২ দশমিক ৮১৩ বিলিয়ন ডলার। সে হিসেবে মাসিকভিত্তিতে আয় বেড়েছে ১৫ দশমিক ৩ শতাংশ।

দেশটিতে চলতি অর্থবছরের ১১ মাসে মোট ২৭ দশমিক ০৯৩ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স এসেছে, যা আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ৭ দশমিক ৭ শতাংশ বেশি।

টপলাইন সিকিউরিটিজের সিইও মোহাম্মদ সোহেল ঈদ ও মুদ্রার স্থিতিশীলতাকে এ বৃদ্ধির কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রোগ্রাম ও মুদ্রার স্থিতিশীলতার কারণে সামনের মাসগুলোতে রেমিট্যান্সের প্রবৃদ্ধি শক্তিশালী থাকতে পারে।

দেশটিতে সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স এসেছে সৌদি আরব থেকে। মে মাসে সেখান থেকে ৮১৯ দশমিক ৩ মিলিয়ন ডলার প্রবাসী আয় পায় পাকিস্তান, যা মাসিকভিত্তিতে ১৫ শতাংশ ও বার্ষিকভিত্তিতে ৫৬ দশমিক ৪ শতাংশ বেশি।

 

Tag :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

জাফলং সহ গোয়াইনঘাটের সবকটি পর্যটন কেন্দ্র খুলে দেওয়া হল

পাকিস্তানে প্রবাসী আয়ে রেকর্ড

আপডেট সময় ১১:২৬:০৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৮ জুন ২০২৪

এক মাসে ৩০০ কোটি ডলারের বেশি প্রবাসী আয় পেল পাকিস্তান। চলতি বছরের মে মাসে ৩ দশমিক ২৪৩ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন পাকিস্তানের প্রবাসীরা। যা এক বছর আগের তুলনায় ৫৪ দশমিক দুই শতাংশ বেশি।

শুক্রবার পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রকাশিত তথ্যে এমন বৃদ্ধি দেখা যায়। মূলত ঈদুল আজহা ও রুপির স্থিতিশীলতার কারণে প্রবাসী আয় বেড়েছে।

গত বছরের মে মাসে দেশটির প্রবাসীরা ২ দশমিক ১০৩ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়ে ছিল। এ বছরের এপ্রিলে দেশটির প্রবাসী আয় ছিল ২ দশমিক ৮১৩ বিলিয়ন ডলার। সে হিসেবে মাসিকভিত্তিতে আয় বেড়েছে ১৫ দশমিক ৩ শতাংশ।

দেশটিতে চলতি অর্থবছরের ১১ মাসে মোট ২৭ দশমিক ০৯৩ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স এসেছে, যা আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ৭ দশমিক ৭ শতাংশ বেশি।

টপলাইন সিকিউরিটিজের সিইও মোহাম্মদ সোহেল ঈদ ও মুদ্রার স্থিতিশীলতাকে এ বৃদ্ধির কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রোগ্রাম ও মুদ্রার স্থিতিশীলতার কারণে সামনের মাসগুলোতে রেমিট্যান্সের প্রবৃদ্ধি শক্তিশালী থাকতে পারে।

দেশটিতে সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স এসেছে সৌদি আরব থেকে। মে মাসে সেখান থেকে ৮১৯ দশমিক ৩ মিলিয়ন ডলার প্রবাসী আয় পায় পাকিস্তান, যা মাসিকভিত্তিতে ১৫ শতাংশ ও বার্ষিকভিত্তিতে ৫৬ দশমিক ৪ শতাংশ বেশি।