উপজেলা প্রশাসনের নিযুক্ত স্বেচ্ছাসেবকদের জাফলংয়ে পর্যটকদের উপর হামলায় আটক ৫

দৈনিক আমাদের মাতৃভূমি
০৬ মে ২০২২, ০৯:১৯ অপরাহ্ন
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক


সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার পর্যটন এলাকা পূর্ব জাফলংয়ে পর্যটকদের উপর হামলা চালিয়েছে উপজেলা প্রশাসনের নিযুক্ত স্বেচ্ছাসেবকরা। এতে নারী ও পুরুষ পর্যটকসহ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ। এবং গতকাল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল একটি নাম বর্তমান ছাত্রদলের নেতা ইকবাল ওই ব্যক্তির নাম এবং ছবি ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁর নেতৃত্বে নাকি এ সকল কার্যক্রম পরিচালনা করা হয় কে এই  ইকবাল নামের ওই ব্যক্তি উপজেলা প্রশাসনের সকল কার্যক্রম সেটেলমেন্ট করে সে নাকি বেতনভুক্ত কর্মচারী তার নেতৃত্বে জাফলং এর সকল কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। স্থানীয় সূত্রে আরো জানা যায়, জাফলং এর নাম বলতে অনিচ্ছুক মোহাম্মদপুর গ্রামের একজন সিভি জমা দিতে গেলে সরাসরি ইকবালের মাধ্যমে দেওয়া লাগে এবং ইকবালকে সিভি জমা দিয়েছে এসেছে স্বেচ্ছাসেবকের চাকরির জন্য। 


স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ইকবাল গত তিনচার বছর ধরে উপজেলা প্রশাসনের দালালি সেটেলমেন্ট করে এবং এসব করে সে গড়ে তুলেছে নিজ এলাকায় বিলাসবহুল বাড়ি কয়েকবিঘা জমি তার হাতে থাকে আড়াই থেকে দুই লক্ষ টাকা দামের মোবাইল ফোন, রয়েছে ইকবালের বিভিন্ন ব্যাংকের একাউন্টে লক্ষ লক্ষ টাকা স্থানীয়দের ও জনমনে প্রশ্ন সে যদি সামান্য একজন বেতনভুক্ত কর্মচারী হয়ে থাকে এই ওটালিয়া সম্পদ সে পেল কোথায়, তার এই আয়ের উৎস কোথায়? স্থানীয়দের দাবি ইকবালদের মত ছাত্রদল নেতারা কীভাবে ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকে এসব মুখোশধারী ছাত্রদল নেতাদের খুটির জোর কোথায়।


আটককৃতরা হলেন, গোয়াইনঘাটের পন্নগ্রামের মৃত রাখালচন্দ্রের পুত্র লক্ষ্মণচন্দ্র দাস (২১) ও ইসলামপুর গ্রামের বাবুল মিয়ার পুত্র মো. সেলিম আহমেদ (২১)। আটক অন্য তিনজনের ক্ষেত্রে এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট কিনা যাচাই করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। (৫ এপ্রিল) দুপুর দেড়টার দিকে জাফলং পর্যটন কেন্দ্রে টিকিট কেনাকে কেন্দ্র করে পর্যটকদের সঙ্গে স্বেচ্ছাসেবকদের বাকবিতন্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে স্বেচ্ছাসেবকরা পর্যটকদের ওপর চড়াও হলে এই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে। 


প্রত্যক্ষদর্শীরা ও স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীরা জানান, টিকিট কেনার সময় পর্যটকদের সঙ্গে টিকিট কাউন্টারে কর্তব্যরতদের বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে কাউন্টারে থাকা স্বেচ্ছাসেবকরা লাঠি দিয়ে পর্যটকদের পেটাতে শুরু করে। তখন সেখানে থাকা একজন নারী পর্যটক হামলার শিকার হন। এ ঘটনায় ৫ জন আহত হয়েছেন। এবং ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশ পেলে তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। ভিডিওতে দেখা যায়, স্বেচ্ছাসেবক লেখা নীল ইউনিফর্ম পরা ৩ জন লাঠি নিয়ে একদল পর্যটককে বেধড়ক পেটাচ্ছেন। এ সময় কয়েকজন নারী পর্যটক তাদের থামাতে গিয়ে হামলার শিকার হন।


জানা যায়, ২০২১ সাল থেকে পর্যটন কেন্দ্রে সুবিধা বৃদ্ধির লক্ষ্যে জাফলংয়ে প্রবেশের ক্ষেত্রে পর্যটকদের ১০ টাকা প্রবেশ ফি নির্ধারণ করে দেয় প্রশাসন। এর আগে পর্যটকদের সেখানে টিকিট কেটে প্রবেশ করতে হতো না। যে কারণে পর্যটকরা জাফলং বেড়াতে এসে টিকিট কাটতে হবে শুনে বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করছেন। গোয়াইনঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তাহমিলুর রহমান বলেন, টিকিট কাউন্টারের দায়িত্বে থাকা স্বেচ্ছাসেবকদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি থেকে এই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার সূত্রপাত। যেহেতু হামলাকারীরা আমাদের নিয়োজিত স্বেচ্ছাসেবক,তাই আমি দায় নিচ্ছি। ইতোমধ্যেই ৩ জন স্বেচ্ছাসেবককে বরখাস্ত করেছি এবং স্থানীয় পুলিশকে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে বলেছি।


ট্যুরিস্ট পুলিশের জাফলং-এর ইনচার্জ মো. রতন শেখ বলেন, জাফলং-এ পানিতে পড়ে একজন পর্যটক নিখোঁজ হয়েছেন, এমন সংবাদে আমরা অন্যদিকে ব্যস্ত ছিলাম। এই সুযোগে পর্যটকদের উপর হামলার ঘটনাটি ঘটেছে। ঘটনা যেই হোক জড়িত আমরা ব্যবস্থা নেব। সিলেট জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম বলেন, জাফলং পর্যটনকেন্দ্রে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। জেলা ডিবি পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকেও পুলিশ রয়েছে। যে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ তৎপর রয়েছে। এ ঘটনায় ৫ জনকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে ও আজ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে তিনি জানান