ভারতীয় চোরাই মোবাইল সহ জৈন্তাপুর উপজেলা আঃ লীগের সেক্রেটারির ছেলে ও ভাতিজা আটক

দৈনিক আমাদের মাতৃভূমি
১৬ এপ্রিল ২০২২, ০১:০৭ পূর্বাহ্ন
Link Copied!

বদরুল হাসান, জৈন্তাপুর প্রতিনিধিঃ


সিলেট শহরতলীর শাহপরাণ (রহঃ) মাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের অভিযানে (১০০ পিস) ভারতীয় চোরাই মোবাইল নিয়ে জৈন্তাপুর উপজেলা আওমীলীগের সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলীর ছেলে ও ভাতিজা সহ ৩ চোরাচালান কারবারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধৃত আসামীরা হচ্ছে, জৈন্তাপুর থানাধীন মোকাম পুঞ্জি এলাকা ও জৈন্তাপুর উপজেলা আওমীলীগের সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলীর ছেলে মোঃ জাফর সাদেক জয় আলী (২২) ও একই থানাধীন বাউর ভাগ এলাকার ইসমাইল আলীর ছেলে মোঃ আক্তার হোসেন (২২) এবং তাদের গাড়ি চালক ফেঞ্চুগঞ্জ থানাধীন পাঠান টিলা এলাকার মৃত জমির আলীর ছেলে মোঃ লিমন মিয়া (২৮)।


পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, শাহপরাণ (রহঃ) থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আনিসুর রহমান ও শাহপরাণ (রহঃ) মাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ সারোয়ার হোসেন ভূইয়ার দিকনির্দেশনায় শাহপরাণ (রহঃ) মাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের টুআইসি এসআই (নিঃ) উত্তম রায়ের নেতৃত্ব এএসআই কামাল হোসেন, এএসআই সব্যসাচী দাসসহ পুলিশের একটি আভিযানিক টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চোরাচাললান বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে বৃহস্প্রতিবার (১৪ই এপ্রিল) রাত অনুমান ১০:২০ ঘটিকার সময় উক্ত থানাধীন পিরেরবাজার বাজারস্থ শাহ সুন্দর রেষ্টুরেন্টের সামনে তামাবিল মহাসড়কে তাদের ব্যবহৃত প্রাইভেট কার যাহার নং- ঢাকা মেট্রো- গ-২১০৬৫০ নাম্বারের গাড়িটি আটক করে গাড়িটি তল্লাশী চালিয়ে ধৃত আসামীদের হেফাজত হইতে ঘটনাস্থলে উপস্থিত সাক্ষীগণের সম্মুখে সর্বমোট (১০০ পিস) বিভিন্ন মডেলের ভারতীয় চোরাই মোবাইল সহ ধৃত আসামীদের গ্রেফতার করা হয়েছে।


ধৃত আসামীরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, সিলেট জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা হইতে বিশেষ কৌশলে ভারতীয় চোরাই মোবাইল সংগ্রহ করে সিলেট শহরের করিমউল্লাহ মাকের্টের ব্যবসায়ী তাদের অপর সহযোগী শাহপরাণ (রহঃ) থানাধীন খাদিমপাড়া এলাকার আনোয়ার হোসেনের ছেলে মোঃ শিপলু (৩০) এর নিকট বিক্রয় করার জন্য নিয়ে আসছিল। তারা আরো জানায়, তাদের এই ভারতীয় চোরাই মোবাইলের চোরাচালান বাণিজ্যে জৈন্তাপুর উপজেলা আওমীলীগের সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলী সবসময় তাদের সার্বিক সহযোগিতা করে।


ধৃত আসামীদের হেফাজত হইতে উদ্ধারকৃত (১০০ পিস) ভারতীয় চোরাই মোবাইল যাহার মূল্য অনুমান- ১২,৫১,০০০ টাকা ও তাদের চোরাচালান কাজে ব্যবহৃত প্রাইভেট কার যাহার মূল্য অনুমান- ১৫,০০,০০০ টাকা সহ সর্বমোট ২৭,৫১,০০০ টাকার মালামাল জব্দ করা হয়েছে বলেও জানা যায়।ধৃত আসামীদের গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে শাহপরাণ (রহঃ) থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আনিসুর রহমান বলেন, ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫-বি/২৫-ডি ধারার অপরাধে নিয়মিত মামলা রুজু করে কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।