ঢাকা ১০:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ১৫ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
এইচএসসি পরীক্ষা ২০২২ প্রস্তুতি

প্রথম দিন এক ঘণ্টা আগে কেন্দ্রে পৌঁছাবে

অধ্যক্ষ, নটর ডেম কলেজ, ঢাকা

সম্মানিত অভিভাবক ও প্রিয় শিক্ষার্থী

সবাইকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। প্রিয় শিক্ষার্থী, দেখতে দেখতে তোমাদের এইচএসসি দুই বছরের শিক্ষাজীবন প্রায় সমাপ্তি লগ্নে এসে উপস্থিত হয়েছে। পরীক্ষা একেবারে দ্বারে কড়া নাড়ছে। তোমরা নিশ্চয়ই খুব উদ্বেলিত। এ পরীক্ষার মধ্যদিয়ে তোমাদের গত দুই বছরের কঠোর পরিশ্রমের বাস্তব প্রতিফলন ঘটতে যাচ্ছে বলে আমি বিশ্বাস করছি।  আশা করি, বিগত কয়েক মাস তোমরা অত্যন্ত মনোযোগের সঙ্গে পড়াশোনা করছ।

শ্রদ্ধেয় অভিভাবকবৃন্দ, আপনাদের সন্তানদের আসন্ন এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে আপনারাও অনেক উৎকণ্ঠিত। সবার পরীক্ষা ভালো হবে কি-না, সবাই সুস্থ শরীরে সব পরীক্ষা সমাপ্ত করতে পারবে কি-না ইত্যাদি নিয়ে আপনারা অনেক উৎকণ্ঠার মধ্যে থাকেন। তবে এ ব্যাপারে আমি যথেষ্ট আশাবাদী। পরীক্ষার সময় পরীক্ষার্থীরা একটু বেশি অস্থির থাকে বিধায় কতগুলো বিষয়ে ভুলভ্রান্তি করতে পারে, কখনো এসব ভুলভ্রান্তির পরিণাম জীবন চলার পথে অনেক বড় প্রতিবন্ধকতার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই কয়েকটি বিষয়ে আপনাদের একটু বেশি খেয়াল রাখার জন্য অনুরোধ করছি।

১. ছাত্র যেন পরীক্ষার আগের রাতে না ঘুমিয়ে অথবা অধিক রাত জেগে পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি না নেয়। পরীক্ষার আগের রাতে ভালো ঘুম হওয়া ভালো পরীক্ষার জন্য খুবই জরুরি।

২. পরীক্ষা চলাকালীন বাইরের খাবার যতদূর সম্ভব পরিহার করা শ্রেয়। কারণ বর্তমান পরিস্থিতিতে বাইরের যে কোনো ধরনের খাবার তাকে অসুস্থ করে তুলতে পারে এবং এ কারণে তার অপূরণীয় ক্ষতি হতে পারে।

৩. কোনো কারণে যদি একটি পরীক্ষা একটু খারাপ হয়ে যায় তার জন্য কোনোরূপ মন খারাপ না করে পরবর্তী পরীক্ষার জন্য ভালো প্রস্তুতি নেওয়াই শ্রেয়। হতে পারে ওই পরীক্ষাটি অনেক ছাত্রেরই খারাপ হয়েছে।

৪. পরীক্ষার প্রথম দিনে পরীক্ষা শুরুর ১ ঘণ্টা এবং পরবর্তী দিনগুলোতে ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার হলের দরজা খোলা হবে। পরীক্ষার্থীকে এ সময়ের মধ্যে নিজ নিজ আসন গ্রহণ করতে হবে। অতএব, কোনো ধরনের ঝুঁকি না নিয়ে সময়মতো পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছানো নিশ্চিত করতে হবে। এ ব্যাপারে অভিভাবকের বিশেষ সহযোগিতা কামনা করছি।

৫. পরীক্ষার্থী তার প্রবেশপত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ড, প্রয়োজনীয় কলম, পেন্সিল, সার্পেনার, ইরেজার, নির্ধারিত ক্যালকুলেটর ইত্যাদি প্রয়োজনীয় জিনিস তার সঙ্গে করে নিয়ে পরীক্ষার জন্য বের হচ্ছে কি-না তা একটু তদারক করবেন।

৬. কোনো পরীক্ষার্থী পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল ফোন আনতে পারবে না। ভালো হবে পরীক্ষার দিনগুলোতে মোবাইল ফোন আপনাদের নিজের কাছে নিয়ে নেওয়া।

৭. পরীক্ষায় কোনো ধরনের অসদুপায় অবলম্বনের চেষ্টা যেন না করে সে ব্যাপারে সতর্ক করবেন।

পরীক্ষার্থীদের জন্য নির্দেশাবলি

১. সকালে অনুষ্ঠেয় পরীক্ষা শুরু সকাল ১১টায় এবং বিকালের পরীক্ষা শুরু দুপুর ২টায়। পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে অবশ্যই পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা কক্ষে আসন গ্রহণ করতে হবে। অতএব, কোনো ধরনের ঝুঁকি না নিয়ে সময়মতো পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছানো নিশ্চিত করতে হবে।

২. বহু নির্বাচনি পরীক্ষার ক্ষেত্রে সময় ২০ মিনিট এবং সৃজনশীল পরীক্ষার ক্ষেত্রে সময় ১ ঘণ্টা ৪০ মিনিট। পরীক্ষা বিরতিহীনভাবে প্রশ্নপত্রে উল্লেখিত সময় পর্যন্ত চলবে। MCQ এবং CQ উভয় অংশের পরীক্ষার মধ্যে কোনো বিরতি থাকবে না।

৩. পরীক্ষার্থী তার প্রবেশপত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ড, প্রয়োজনীয় কলম, পেন্সিল, সার্পেনার, ইরেজার, নির্ধারিত সাধারণ সাইন্টিফিক ক্যালকুলেটর ইত্যাদি প্রয়োজনীয় জিনিস তার সঙ্গে করে নিয়ে আসবে। কোনোভাবেই প্রোগ্রামিং ক্যালকুলেটর নিয়ে যাবে না।

৪. প্রত্যেক পরীক্ষার্থী সরবরাহকৃত এউত্তরপত্রে তার পরীক্ষার রোল নম্বর, রেজিস্ট্রেশন নম্বর, বিষয় কোড, বোর্ডের নাম ইত্যাদি ওএমআর ফরমে যথাযথভাবে লিখে বৃত্ত ভরাট করবে। কোনো অবস্থাতেই মার্জিনের মধ্যে লেখা কিংবা অন্য কোনো প্রয়োজনে উত্তরপত্র ভাঁজ করা যাবে না।

৫. ব্যবহারিক সম্বলিত বিষয়ে তত্ত্বীয়, বহু নির্বাচনি ও ব্যবহারিক অংশে পৃথকভাবে পাশ করতে হবে।

৬. কোনো পরীক্ষার্থী পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল ফোন আনতে পারবে না।

৭. পরীক্ষার্থীকে অবশ্যই তার কলেজের ইউনিফরম পরিধান করতে হবে।

৮. উত্তরপত্রে আপত্তিকর লেখা/অসৌজন্যমূলক মন্তব্য বা অনুরোধ, উত্তরপত্র জমা না দিয়ে হল ত্যাগ করা, পরীক্ষা পরিচালনায় নিযুক্ত কোনো ব্যক্তির প্রতি অসৌজন্যমূলক আচরণ, পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন বা সুষ্ঠু পরীক্ষা পরিচালনায় কোনোরূপ বাধার সৃষ্টি করা থেকে বিরত থাকতে বলা হচ্ছে।

৯. বোর্ড থেকে সরবরাহকৃত পরীক্ষার্থীর প্রবেশপত্রের পিছনে ‘পরীক্ষার্থীর অবশ্যই পালনীয় নিয়মাবলি’ ভালো করে পড়তে হবে এবং পালন করতে হবে।

পরিশেষে বলছি, পরীক্ষায় কোনো ধরনের অসদুপায় অবলম্বনের কোনো চেষ্টা করবে না। পরীক্ষাকেন্দ্রে হইচই, উচ্চস্বরে কথা বলা বা কোনো ধরনের শব্দ করা থেকে বিরত থাকবে। কারণ এতে তোমার নিজ কলেজের সুনাম নষ্ট হবে। মনে রাখবে, তুমি নটর ডেম কলেজের সুদীর্ঘ ৭৩ বছরের সুমহান ইতিহাস ও ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক। কেন্দ্রে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক ও অন্যান্য কর্মচারীদের প্রতি সম্মানসূচক আচরণ করবে। আমি পরম করুণাময়ের কাছে তোমাদের জন্য প্রার্থনা করি যেন তোমরা সফলকাম হতে পার। তোমাদের জন্য আমার শুভকামনা রইল।

Tag :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

আ.লীগ নয়, বিএনপির প্রধান শত্রু জনগণ : শেখ পরশ

এইচএসসি পরীক্ষা ২০২২ প্রস্তুতি

প্রথম দিন এক ঘণ্টা আগে কেন্দ্রে পৌঁছাবে

আপডেট সময় ০৬:১৬:০৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩ নভেম্বর ২০২২

অধ্যক্ষ, নটর ডেম কলেজ, ঢাকা

সম্মানিত অভিভাবক ও প্রিয় শিক্ষার্থী

সবাইকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। প্রিয় শিক্ষার্থী, দেখতে দেখতে তোমাদের এইচএসসি দুই বছরের শিক্ষাজীবন প্রায় সমাপ্তি লগ্নে এসে উপস্থিত হয়েছে। পরীক্ষা একেবারে দ্বারে কড়া নাড়ছে। তোমরা নিশ্চয়ই খুব উদ্বেলিত। এ পরীক্ষার মধ্যদিয়ে তোমাদের গত দুই বছরের কঠোর পরিশ্রমের বাস্তব প্রতিফলন ঘটতে যাচ্ছে বলে আমি বিশ্বাস করছি।  আশা করি, বিগত কয়েক মাস তোমরা অত্যন্ত মনোযোগের সঙ্গে পড়াশোনা করছ।

শ্রদ্ধেয় অভিভাবকবৃন্দ, আপনাদের সন্তানদের আসন্ন এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে আপনারাও অনেক উৎকণ্ঠিত। সবার পরীক্ষা ভালো হবে কি-না, সবাই সুস্থ শরীরে সব পরীক্ষা সমাপ্ত করতে পারবে কি-না ইত্যাদি নিয়ে আপনারা অনেক উৎকণ্ঠার মধ্যে থাকেন। তবে এ ব্যাপারে আমি যথেষ্ট আশাবাদী। পরীক্ষার সময় পরীক্ষার্থীরা একটু বেশি অস্থির থাকে বিধায় কতগুলো বিষয়ে ভুলভ্রান্তি করতে পারে, কখনো এসব ভুলভ্রান্তির পরিণাম জীবন চলার পথে অনেক বড় প্রতিবন্ধকতার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই কয়েকটি বিষয়ে আপনাদের একটু বেশি খেয়াল রাখার জন্য অনুরোধ করছি।

১. ছাত্র যেন পরীক্ষার আগের রাতে না ঘুমিয়ে অথবা অধিক রাত জেগে পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি না নেয়। পরীক্ষার আগের রাতে ভালো ঘুম হওয়া ভালো পরীক্ষার জন্য খুবই জরুরি।

২. পরীক্ষা চলাকালীন বাইরের খাবার যতদূর সম্ভব পরিহার করা শ্রেয়। কারণ বর্তমান পরিস্থিতিতে বাইরের যে কোনো ধরনের খাবার তাকে অসুস্থ করে তুলতে পারে এবং এ কারণে তার অপূরণীয় ক্ষতি হতে পারে।

৩. কোনো কারণে যদি একটি পরীক্ষা একটু খারাপ হয়ে যায় তার জন্য কোনোরূপ মন খারাপ না করে পরবর্তী পরীক্ষার জন্য ভালো প্রস্তুতি নেওয়াই শ্রেয়। হতে পারে ওই পরীক্ষাটি অনেক ছাত্রেরই খারাপ হয়েছে।

৪. পরীক্ষার প্রথম দিনে পরীক্ষা শুরুর ১ ঘণ্টা এবং পরবর্তী দিনগুলোতে ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার হলের দরজা খোলা হবে। পরীক্ষার্থীকে এ সময়ের মধ্যে নিজ নিজ আসন গ্রহণ করতে হবে। অতএব, কোনো ধরনের ঝুঁকি না নিয়ে সময়মতো পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছানো নিশ্চিত করতে হবে। এ ব্যাপারে অভিভাবকের বিশেষ সহযোগিতা কামনা করছি।

৫. পরীক্ষার্থী তার প্রবেশপত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ড, প্রয়োজনীয় কলম, পেন্সিল, সার্পেনার, ইরেজার, নির্ধারিত ক্যালকুলেটর ইত্যাদি প্রয়োজনীয় জিনিস তার সঙ্গে করে নিয়ে পরীক্ষার জন্য বের হচ্ছে কি-না তা একটু তদারক করবেন।

৬. কোনো পরীক্ষার্থী পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল ফোন আনতে পারবে না। ভালো হবে পরীক্ষার দিনগুলোতে মোবাইল ফোন আপনাদের নিজের কাছে নিয়ে নেওয়া।

৭. পরীক্ষায় কোনো ধরনের অসদুপায় অবলম্বনের চেষ্টা যেন না করে সে ব্যাপারে সতর্ক করবেন।

পরীক্ষার্থীদের জন্য নির্দেশাবলি

১. সকালে অনুষ্ঠেয় পরীক্ষা শুরু সকাল ১১টায় এবং বিকালের পরীক্ষা শুরু দুপুর ২টায়। পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে অবশ্যই পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা কক্ষে আসন গ্রহণ করতে হবে। অতএব, কোনো ধরনের ঝুঁকি না নিয়ে সময়মতো পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছানো নিশ্চিত করতে হবে।

২. বহু নির্বাচনি পরীক্ষার ক্ষেত্রে সময় ২০ মিনিট এবং সৃজনশীল পরীক্ষার ক্ষেত্রে সময় ১ ঘণ্টা ৪০ মিনিট। পরীক্ষা বিরতিহীনভাবে প্রশ্নপত্রে উল্লেখিত সময় পর্যন্ত চলবে। MCQ এবং CQ উভয় অংশের পরীক্ষার মধ্যে কোনো বিরতি থাকবে না।

৩. পরীক্ষার্থী তার প্রবেশপত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ড, প্রয়োজনীয় কলম, পেন্সিল, সার্পেনার, ইরেজার, নির্ধারিত সাধারণ সাইন্টিফিক ক্যালকুলেটর ইত্যাদি প্রয়োজনীয় জিনিস তার সঙ্গে করে নিয়ে আসবে। কোনোভাবেই প্রোগ্রামিং ক্যালকুলেটর নিয়ে যাবে না।

৪. প্রত্যেক পরীক্ষার্থী সরবরাহকৃত এউত্তরপত্রে তার পরীক্ষার রোল নম্বর, রেজিস্ট্রেশন নম্বর, বিষয় কোড, বোর্ডের নাম ইত্যাদি ওএমআর ফরমে যথাযথভাবে লিখে বৃত্ত ভরাট করবে। কোনো অবস্থাতেই মার্জিনের মধ্যে লেখা কিংবা অন্য কোনো প্রয়োজনে উত্তরপত্র ভাঁজ করা যাবে না।

৫. ব্যবহারিক সম্বলিত বিষয়ে তত্ত্বীয়, বহু নির্বাচনি ও ব্যবহারিক অংশে পৃথকভাবে পাশ করতে হবে।

৬. কোনো পরীক্ষার্থী পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল ফোন আনতে পারবে না।

৭. পরীক্ষার্থীকে অবশ্যই তার কলেজের ইউনিফরম পরিধান করতে হবে।

৮. উত্তরপত্রে আপত্তিকর লেখা/অসৌজন্যমূলক মন্তব্য বা অনুরোধ, উত্তরপত্র জমা না দিয়ে হল ত্যাগ করা, পরীক্ষা পরিচালনায় নিযুক্ত কোনো ব্যক্তির প্রতি অসৌজন্যমূলক আচরণ, পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন বা সুষ্ঠু পরীক্ষা পরিচালনায় কোনোরূপ বাধার সৃষ্টি করা থেকে বিরত থাকতে বলা হচ্ছে।

৯. বোর্ড থেকে সরবরাহকৃত পরীক্ষার্থীর প্রবেশপত্রের পিছনে ‘পরীক্ষার্থীর অবশ্যই পালনীয় নিয়মাবলি’ ভালো করে পড়তে হবে এবং পালন করতে হবে।

পরিশেষে বলছি, পরীক্ষায় কোনো ধরনের অসদুপায় অবলম্বনের কোনো চেষ্টা করবে না। পরীক্ষাকেন্দ্রে হইচই, উচ্চস্বরে কথা বলা বা কোনো ধরনের শব্দ করা থেকে বিরত থাকবে। কারণ এতে তোমার নিজ কলেজের সুনাম নষ্ট হবে। মনে রাখবে, তুমি নটর ডেম কলেজের সুদীর্ঘ ৭৩ বছরের সুমহান ইতিহাস ও ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক। কেন্দ্রে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক ও অন্যান্য কর্মচারীদের প্রতি সম্মানসূচক আচরণ করবে। আমি পরম করুণাময়ের কাছে তোমাদের জন্য প্রার্থনা করি যেন তোমরা সফলকাম হতে পার। তোমাদের জন্য আমার শুভকামনা রইল।