ঢাকা ১০:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ১৫ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

আইএলওর সুপারিশসমূহ পূর্ণ বাস্তবায়ন দেখ‌তে চায় যুক্তরাষ্ট্র

শ্রম অধিকার বাস্তবায়নে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) সুপারিশসমূহ পূর্ণ বাস্তবায়নে বাংলাদেশকে আহ্বান জানি‌য়ে‌ছে মা‌র্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে শ্রম সংক্রান্ত ওয়ার্কিং গ্রুপের ভার্চুয়াল বৈঠক এ আহ্বান জানায় ওয়াশিংটন। প্রথমবারের মতো শ্রম-মান নিয়ে ওয়ার্কিং গ্রু‌পের আনুষ্ঠানিক বৈঠকে ঢাকার পক্ষে নেতৃত্ব দেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। ওয়াশিংটনের দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, জ্বালানি ও পরিবেশ বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি হোজে ফার্নান্দেজ।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান শ্রম খাতে বর্তমান সরকারের গৃহীত পদক্ষেপসমূহ বিস্তারিত তুলে ধরেন। তি‌নি বলেন, বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার শ্রম অধিকার বিষয়ক সুপারিশসমূহ অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করে।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা শ্রম আইন ও ইপিজেড আইনসহ সংশ্লিষ্ট বিধি বিধানের সংশোধন ও আন্তর্জাতিক শ্রম কনভেনশনসমূহ অনুস্বাক্ষরের বিষয়ও তুলে ধরেন।অন্যদি‌কে আন্ডার সেক্রেটারি হোজে ফার্নান্দেজ বাংলাদেশের শ্রম খাত উন্নয়নে গৃহীত পদক্ষেপসমূহের প্রশংসা করেন এবং আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার সুপারিশসমূহের পূর্ণ বাস্তবায়নের আহবান জানান। তিনি বাংলাদেশের শ্রম খাতের অধিকতর উন্নয়নে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান ও একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে জোসে ফার্নান্ডেজের নেতৃত্বে দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক ব্যুরোর সহকারী সচিব ডোনাল্ড লু, বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস এবং অন্যান্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরের প্রতিনিধিগণের সমন্বয়ে ৩৪ সদস্যের একটি দল ওই বৈঠকে অংশ নেন।

শ্রম সচিব বিগত এক দশকের বেশি সময়ে শ্রম খাতে বর্তমান সরকারের গৃহীত পদক্ষেপসমূহের সুফল সম্পর্কে সভায় অবহিত করেন। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদল শ্রম আইন ও বিধি সংশোধন এবং ট্রেড ইউনিয়নের নিবন্ধন বিষয়ে তাদের পর্যবেক্ষণসমূহ তুলে ধরেন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা প্রদানের বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনার আহ্বান জানান। তিনি স্বল্পোন্নত দেশ হতে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হবার সন্ধিক্ষণে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের প্রতি সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এছাড়া পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক পরিচালিত আন্তর্জাতিক আর্থিক উন্নয়ন কর্পোরেশনের সহযোগিতা লাভের বিষয়ে আলোকপাত করেন।

সমাপনী বক্তব্যে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক ব্যুরোর সহকারী সচিব ডোনাল্ড লু বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের গভীর সম্পর্কের কথা তুলে ধরেন এবং শ্রম অধিকার প্রতিষ্ঠা ও বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে জানান।

পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, বাংলাদেশ শ্রম অধিকার রক্ষায় তার করণীয় সম্পর্কে সম্পূর্ণ সজাগ এবং সে অনুযায়ী প্রয়োজনীয় সংস্কারসহ সকল কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অংশীদারিত্ব আরও জোরালো করার বিষয়ে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

Tag :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

আ.লীগ নয়, বিএনপির প্রধান শত্রু জনগণ : শেখ পরশ

আইএলওর সুপারিশসমূহ পূর্ণ বাস্তবায়ন দেখ‌তে চায় যুক্তরাষ্ট্র

আপডেট সময় ০৬:৫৫:৪৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ অক্টোবর ২০২২

শ্রম অধিকার বাস্তবায়নে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) সুপারিশসমূহ পূর্ণ বাস্তবায়নে বাংলাদেশকে আহ্বান জানি‌য়ে‌ছে মা‌র্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে শ্রম সংক্রান্ত ওয়ার্কিং গ্রুপের ভার্চুয়াল বৈঠক এ আহ্বান জানায় ওয়াশিংটন। প্রথমবারের মতো শ্রম-মান নিয়ে ওয়ার্কিং গ্রু‌পের আনুষ্ঠানিক বৈঠকে ঢাকার পক্ষে নেতৃত্ব দেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। ওয়াশিংটনের দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, জ্বালানি ও পরিবেশ বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি হোজে ফার্নান্দেজ।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান শ্রম খাতে বর্তমান সরকারের গৃহীত পদক্ষেপসমূহ বিস্তারিত তুলে ধরেন। তি‌নি বলেন, বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার শ্রম অধিকার বিষয়ক সুপারিশসমূহ অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করে।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা শ্রম আইন ও ইপিজেড আইনসহ সংশ্লিষ্ট বিধি বিধানের সংশোধন ও আন্তর্জাতিক শ্রম কনভেনশনসমূহ অনুস্বাক্ষরের বিষয়ও তুলে ধরেন।অন্যদি‌কে আন্ডার সেক্রেটারি হোজে ফার্নান্দেজ বাংলাদেশের শ্রম খাত উন্নয়নে গৃহীত পদক্ষেপসমূহের প্রশংসা করেন এবং আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার সুপারিশসমূহের পূর্ণ বাস্তবায়নের আহবান জানান। তিনি বাংলাদেশের শ্রম খাতের অধিকতর উন্নয়নে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান ও একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে জোসে ফার্নান্ডেজের নেতৃত্বে দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক ব্যুরোর সহকারী সচিব ডোনাল্ড লু, বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস এবং অন্যান্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরের প্রতিনিধিগণের সমন্বয়ে ৩৪ সদস্যের একটি দল ওই বৈঠকে অংশ নেন।

শ্রম সচিব বিগত এক দশকের বেশি সময়ে শ্রম খাতে বর্তমান সরকারের গৃহীত পদক্ষেপসমূহের সুফল সম্পর্কে সভায় অবহিত করেন। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদল শ্রম আইন ও বিধি সংশোধন এবং ট্রেড ইউনিয়নের নিবন্ধন বিষয়ে তাদের পর্যবেক্ষণসমূহ তুলে ধরেন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা প্রদানের বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনার আহ্বান জানান। তিনি স্বল্পোন্নত দেশ হতে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হবার সন্ধিক্ষণে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের প্রতি সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এছাড়া পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক পরিচালিত আন্তর্জাতিক আর্থিক উন্নয়ন কর্পোরেশনের সহযোগিতা লাভের বিষয়ে আলোকপাত করেন।

সমাপনী বক্তব্যে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক ব্যুরোর সহকারী সচিব ডোনাল্ড লু বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের গভীর সম্পর্কের কথা তুলে ধরেন এবং শ্রম অধিকার প্রতিষ্ঠা ও বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে জানান।

পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, বাংলাদেশ শ্রম অধিকার রক্ষায় তার করণীয় সম্পর্কে সম্পূর্ণ সজাগ এবং সে অনুযায়ী প্রয়োজনীয় সংস্কারসহ সকল কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অংশীদারিত্ব আরও জোরালো করার বিষয়ে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।