ঢাকা ১২:১৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামে স্বেচ্ছাসেবক দলের আনন্দ মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আনন্দ মিছিলে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। বিএনপির দাবি, লাঠিচার্জে তাদের অন্তত ২০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। ১০ নেতা-কর্মীকে আটকের কথা স্বীকার করেছে পুলিশ।

বুধবার (২৬ অক্টোবর) বিকেলে আনন্দ মিছিল নিয়ে নেতা-কর্মীরা নগরের সিআরবি থেকে কাজীর দেউড়ির নসিমন ভবনে বিএনপি দলীয় কার্যালয়ের সামনে আসার পথে লাঠিচার্জের মুখে পড়েন।  আটক হওয়া নেতা-কর্মীরা হলেন— চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মঞ্জুর আলম তালুকদার (৪৩), আনোয়ারা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য মো. নঈমউদ্দীন চৌধুরী (৪৮), ইকবাল হায়দার চৌধুরী (৪০), বাঁশখালী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য আব্দুল আলীম (৩৬), মো. ওমর ফারুক (২২), মো. বেলাল উদ্দিন বাদশা (২২), পটিয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য মো. আজিজ (৩৪), মুরাদুল আলম (৪০), আরমান (২৪) ও মো. তোফায়েল আহম্মেদ (২২)।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের উদ্যোগে নতুন কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল বের করি। মিছিলটি সিআরবি থেকে পার্টি অফিসের দিকে যাওয়ার সময় পুলিশ এসে বিনা উস্কানিতে আমাদের বাধা দিয়ে লাঠিচার্জ শুরু করে। এতে আমাদের ২০ জনের বেশি নেতাকর্মী আহত হয়েছেন এবং ১০ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশের দাবি, তাদের মিছিলের কারণে সড়কে যানজট সৃষ্টি হয়। তাই তাদের নেতা-কর্মীদের সড়ক থেকে সরে যেতে বললে তারা পুলিশের ওপর চড়াও হয়ে তাদের দিকে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন। এতে পুলিশের চার সদস্য আহত হন। কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহিদুল কবির বলেন, আনন্দ মিছিল করে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা-কর্মীরা সড়কে যানজট সৃষ্টি করেন। তাদেরকে সড়ক থেকে সরে যেতে অনুরোধ করা হলে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছোড়েন। এতে পুলিশের চার সদস্য আহত হন। পরে তাদেরকে ছত্রভঙ্গ  করতে পুলিশ লাঠিচার্জ  করে। এসময় তাদের ১০ নেতা-কর্মীকে আটক করা হয়েছে।

Tag :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

আপলোডকারীর তথ্য

চট্টগ্রামে স্বেচ্ছাসেবক দলের আনন্দ মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ

আপডেট সময় ০১:০৫:৪৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৭ অক্টোবর ২০২২

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আনন্দ মিছিলে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। বিএনপির দাবি, লাঠিচার্জে তাদের অন্তত ২০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। ১০ নেতা-কর্মীকে আটকের কথা স্বীকার করেছে পুলিশ।

বুধবার (২৬ অক্টোবর) বিকেলে আনন্দ মিছিল নিয়ে নেতা-কর্মীরা নগরের সিআরবি থেকে কাজীর দেউড়ির নসিমন ভবনে বিএনপি দলীয় কার্যালয়ের সামনে আসার পথে লাঠিচার্জের মুখে পড়েন।  আটক হওয়া নেতা-কর্মীরা হলেন— চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মঞ্জুর আলম তালুকদার (৪৩), আনোয়ারা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য মো. নঈমউদ্দীন চৌধুরী (৪৮), ইকবাল হায়দার চৌধুরী (৪০), বাঁশখালী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য আব্দুল আলীম (৩৬), মো. ওমর ফারুক (২২), মো. বেলাল উদ্দিন বাদশা (২২), পটিয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য মো. আজিজ (৩৪), মুরাদুল আলম (৪০), আরমান (২৪) ও মো. তোফায়েল আহম্মেদ (২২)।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের উদ্যোগে নতুন কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল বের করি। মিছিলটি সিআরবি থেকে পার্টি অফিসের দিকে যাওয়ার সময় পুলিশ এসে বিনা উস্কানিতে আমাদের বাধা দিয়ে লাঠিচার্জ শুরু করে। এতে আমাদের ২০ জনের বেশি নেতাকর্মী আহত হয়েছেন এবং ১০ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশের দাবি, তাদের মিছিলের কারণে সড়কে যানজট সৃষ্টি হয়। তাই তাদের নেতা-কর্মীদের সড়ক থেকে সরে যেতে বললে তারা পুলিশের ওপর চড়াও হয়ে তাদের দিকে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন। এতে পুলিশের চার সদস্য আহত হন। কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহিদুল কবির বলেন, আনন্দ মিছিল করে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা-কর্মীরা সড়কে যানজট সৃষ্টি করেন। তাদেরকে সড়ক থেকে সরে যেতে অনুরোধ করা হলে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছোড়েন। এতে পুলিশের চার সদস্য আহত হন। পরে তাদেরকে ছত্রভঙ্গ  করতে পুলিশ লাঠিচার্জ  করে। এসময় তাদের ১০ নেতা-কর্মীকে আটক করা হয়েছে।