ঢাকা ০৬:৪২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সিলেট বিভাগীয় সমাবেশকে সফল করতে গনসংযোগ মতবিনিময় সভা সিংড়ায় হাইটেক পার্ক স্হাপন গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ এ্যাওয়ার্ড পেল বাউয়েটের তামিম ও শাফায়াত হোসেন কুমিল্লা মহাসড়কে ডিএনসিসি’র অভিযানে গাঁজাসহ আটক ২ বিভিন্ন কঠিন মামলার রহস্য উদঘাটনে বিশেষ অবদান রাখায় (মিঠাপুকুর-পীরগঞ্জ) ডি সার্কেলকে সম্মাননা স্মারক প্রদান জুয়া খেলা অবস্থায় ০৬ (ছয়) জন জুয়াড়ি আটক সরকারি ন‍্যাশনাল আইডি সার্ভার হ‍্যাককারি ৩ জন গ্রেফতার তৃতীয় লিঙ্গের মারুফা আক্তার মিতু মিঠাপুকুরে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন  রাজধানীতে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে স্বামী-স্ত্রী নিহত সিংড়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার গাভী পেয়ে ৩৯ টি পরিবার খুশি

ঘুষ নেওয়ার দায়ে সু চির আরও ৩ বছরের কারাদণ্ড

সামরিক অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত হয়ে গৃহবন্দি থাকা মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থি নেত্রী অং সান সু চিকে আরও ৩ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এবার ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে সু চিকে এই সাজা দেওয়া হয়েছে।

সামরিক শাসিত মিয়ানমারের একটি আদালত বুধবার (১২ অক্টোবর) ক্ষমতাচ্যুত এই নেত্রীকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেয়। বিষয়টি সম্পর্কে জানেন এমন একটি সূত্রের বরাত দিয়ে বুধবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৭৭ বছর বয়সী নোবেল বিজয়ী এই রাজনীতিক বরাবরই সামরিক শাসনের বিরোধিতাকারী একজন ব্যক্তিত্ব। গত বছরের শুরুর দিকে সামরিক অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর তাকে আটক করে দুর্নীতি থেকে নির্বাচনে জালিয়াতি পর্যন্ত কমপক্ষে ১৮টি অপরাধের জন্য অভিযুক্ত করা হয়।

সংবাদমাধ্যম বলছে, বিভিন্ন অভিযোগে দায়ের হওয়া সবগুলো মামলায় যদি সু চি দোষী সাব্যস্ত হন, সেক্ষেত্রে সবমিলিয়ে তার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ প্রায় ১৯০ বছরের কারাদণ্ডাদেশ হতে পারে।

রাজধানী নেইপিদোর রুদ্ধদ্বার আদালতে সু চির বিরুদ্ধে বিচারকাজ চলছে। সু চি অবশ্য বরাবরই তার বিরুদ্ধে আনা সকল অভিযোগ অস্বীকার করে মিথ্যা বলে দাবি করে এসেছেন। রয়টার্স বলছে, বুধবার সু চিকে দেওয়া কারাদণ্ড একজন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগের সাথে সম্পর্কিত বলে ওই সূত্রটি জানিয়েছে। বিষয়টি অত্যন্ত স্পর্শকাতর হওয়ায় ওই সূত্রটি তার পরিচয় প্রকাশ করতে অস্বীকার করেছেন।

বার্তাসংস্থাটি আরও বলছে, সু চি দু’টি অভিযোগে তিন বছরের কারাদণ্ড পেয়েছেন এবং এই সাজা একই সাথে ভোগ করবেন তিনি। মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর বিরোধীরা বলছেন, সু চির বিরুদ্ধে অভিযোগের উদ্দেশ্য হচ্ছে তাকে আবারও রাজনীতিতে জড়াতে বাধা দেওয়া বা গত বছরের অভ্যুত্থানের পর থেকে ক্ষমতায় সেনাবাহিনীর দখলকে চ্যালেঞ্জ করার চেষ্টাকে আটকে দেওয়া।

অবশ্য সর্বশেষ এই রায় নিয়ে রয়টার্সের পক্ষ থেকে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও সাড়া দেয়নি মিয়ানমারের জান্তা সরকার। তবে জান্তা জোর দিয়ে বলেছে, মিয়ানমারের আদালত স্বাধীন এবং যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে তারা যথাযথ প্রক্রিয়া অনুযায়ী সুবিধা পাচ্ছে।

Tag :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সিলেট বিভাগীয় সমাবেশকে সফল করতে গনসংযোগ মতবিনিময় সভা

ঘুষ নেওয়ার দায়ে সু চির আরও ৩ বছরের কারাদণ্ড

আপডেট সময় ০৩:০১:৪০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ অক্টোবর ২০২২

সামরিক অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত হয়ে গৃহবন্দি থাকা মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থি নেত্রী অং সান সু চিকে আরও ৩ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এবার ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে সু চিকে এই সাজা দেওয়া হয়েছে।

সামরিক শাসিত মিয়ানমারের একটি আদালত বুধবার (১২ অক্টোবর) ক্ষমতাচ্যুত এই নেত্রীকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেয়। বিষয়টি সম্পর্কে জানেন এমন একটি সূত্রের বরাত দিয়ে বুধবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৭৭ বছর বয়সী নোবেল বিজয়ী এই রাজনীতিক বরাবরই সামরিক শাসনের বিরোধিতাকারী একজন ব্যক্তিত্ব। গত বছরের শুরুর দিকে সামরিক অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর তাকে আটক করে দুর্নীতি থেকে নির্বাচনে জালিয়াতি পর্যন্ত কমপক্ষে ১৮টি অপরাধের জন্য অভিযুক্ত করা হয়।

সংবাদমাধ্যম বলছে, বিভিন্ন অভিযোগে দায়ের হওয়া সবগুলো মামলায় যদি সু চি দোষী সাব্যস্ত হন, সেক্ষেত্রে সবমিলিয়ে তার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ প্রায় ১৯০ বছরের কারাদণ্ডাদেশ হতে পারে।

রাজধানী নেইপিদোর রুদ্ধদ্বার আদালতে সু চির বিরুদ্ধে বিচারকাজ চলছে। সু চি অবশ্য বরাবরই তার বিরুদ্ধে আনা সকল অভিযোগ অস্বীকার করে মিথ্যা বলে দাবি করে এসেছেন। রয়টার্স বলছে, বুধবার সু চিকে দেওয়া কারাদণ্ড একজন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগের সাথে সম্পর্কিত বলে ওই সূত্রটি জানিয়েছে। বিষয়টি অত্যন্ত স্পর্শকাতর হওয়ায় ওই সূত্রটি তার পরিচয় প্রকাশ করতে অস্বীকার করেছেন।

বার্তাসংস্থাটি আরও বলছে, সু চি দু’টি অভিযোগে তিন বছরের কারাদণ্ড পেয়েছেন এবং এই সাজা একই সাথে ভোগ করবেন তিনি। মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর বিরোধীরা বলছেন, সু চির বিরুদ্ধে অভিযোগের উদ্দেশ্য হচ্ছে তাকে আবারও রাজনীতিতে জড়াতে বাধা দেওয়া বা গত বছরের অভ্যুত্থানের পর থেকে ক্ষমতায় সেনাবাহিনীর দখলকে চ্যালেঞ্জ করার চেষ্টাকে আটকে দেওয়া।

অবশ্য সর্বশেষ এই রায় নিয়ে রয়টার্সের পক্ষ থেকে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও সাড়া দেয়নি মিয়ানমারের জান্তা সরকার। তবে জান্তা জোর দিয়ে বলেছে, মিয়ানমারের আদালত স্বাধীন এবং যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে তারা যথাযথ প্রক্রিয়া অনুযায়ী সুবিধা পাচ্ছে।