ঢাকা ০১:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চান্দিনায় অভিনব কায়দায় গরু চুরি” পাঁচ ডাকাত গ্ৰেফতার

কুমিল্লার চান্দিনায় অভিনব কায়দায় গরু চুরি করে মিনি কাভার্ডভ্যানে করে নেওয়ার সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রবিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) ভোরে আন্ত: জেলা ডাকাত দলের পাঁচ সদস্যকে আটক করে চান্দিনা থানা পুলিশ। তাদের কে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এঘটনায় চান্দিনা থানার সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রিয়াজুল ইসলাম দৈনিক মুক্তখবর কে জানান, রাত্রিকালীন টহল টিম ভোর ৪টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি উপজেলার মহিচাইল জামিরাপাড়া এলাকা থেকে অভিনব একটি মিনি কাভার্ডভ্যানে করে চোরাই গরু পাচার হচ্ছে। পরে ওই কাভার্ডভ্যানটি আটকের জন্য চেষ্টা করি। তারা আমাদের উপস্থিতি টের পেয়ে দ্রুত মাধাইয়ার বাস স্টেশনের দিকে ছুটে চলছিল।

আমি অপর একটি টহলটিম এস.আই সৈকত দাশগুপ্ত স্যারকে মাধাইয়া এলাকায় বেরিকেট দেওয়ার জন্য জানাই। তিনি মাধাইয়া বাস স্টেশনে আটকের চেষ্টা করলে চোর চক্র মিনি কাভার্ডভ্যানে পুলিশের টহলরত মারুতি গাড়ি ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে আমরা ৩টি টিম ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চান্দিনা উপজেলার মাধাইয়া এলাকা থেকে ধাওয়া করে দেবীদ্বার উপজেলার ভানী ইউনিয়নের পাঁচরঙ্গি গ্রামে পৌঁছালে জনগণ ডাকাত সদস্যদের ঘিরে ফেলে মারধর শুরু করে। জনগণের রোষানল থেকে তাদেরকে বাঁচাতে গিয়ে ধস্তাধস্তিতে চার পুলিশ সদস্য আহত হয়।

অভিযানে দুই বাছুরসহ ২টি উন্নত জাতের গাভী, চোরাই কাজে ব্যবহৃত একটি মিনি কাভার্ডভ্যান উদ্ধার করে পুলিশ। পাঁচজনকে আটক করার পর জানা গেলো তারা আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। আটককৃতরা হলো- কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার পূর্ব কুনপাড়া গ্রামের মো. লতিফ মিয়ার ছেলে মো. জহির (৪০), চান্দিনার তীরচর গ্রামের মৃত আব্দুল আউয়াল এর ছেলে নজরুল ইসলাম (৪৭), হোসেনপুর গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে শাহ আলম (৪২), পরচঙ্গা গ্রামের মৃত আব্দুল রব এর ছেলে কাউছার (৪০), দাউদকান্দি উপজেলার আউটবাগ নগরপাড়া গ্রামের মৃত জলিল সরকারের ছেলে জামাল (৩৭)। তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ডাকাতি মামলা রয়েছে।

আহত চার পুলিশ সদস্য হলেন- চান্দিনা থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) সৈকত দাশগুপ্ত, সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রিয়াজুল ইসলাম, (এএসএই) মো. আব্দুল্লাহ, কনস্ট্রেবল শামীম। চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মো. সাহাবুদ্দীন খাঁন দৈনিক মুক্তখবর কে জানান, প্রাথমিক ভাবে আমরা তাদেরকে চোর চক্রের সদস্য ধারণা করলেও পরবর্তীতে তাদের তথ্য যাচাই করে জানতে পারি তারা আন্তু:জেলা ডাকাত দলের সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক ডাকাতি মামলা রয়েছে। গরু গুলোর তথ্য চেয়ে আমরা বিভিন্ন থানা এলাকায় ম্যাসেজ দিলে নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানা থেকে জানানো হয় ওই থানার মোল্লাপাড়া এলাকা থেকে গরু চুরি হয়েছে।

এ ঘটনায় ওই থানায় একটি জিডি করেন গরুর মালিক ডালিম আল দ্বীন নামের এক ব্যক্তি। পরবর্তীতে গরুর মালিক থানায় এসে তাদের চোরাই হওয়া গরু গুলো সনাক্ত করেন। ওসি আরও জানান, গরু গুলো চান্দিনার মহিচাইল এলাকায় বিক্রির জন্য নিয়ে আসার সময় আমাদের টহলটিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের পিছু নেয়, ‘এসময় তারা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তাদের কাছ থেকে আরও তথ্য উদঘটনের জন্য রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে তিনি দৈনিক মুক্তখবর কে আরও বলেন, জনগণের রোষানল থেকে তাদেরকে বাঁচাতে গিয়ে ধস্তাধস্তিতে আমাদের চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। তাদেরকে চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে।

Tag :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

আপলোডকারীর তথ্য

চান্দিনায় অভিনব কায়দায় গরু চুরি” পাঁচ ডাকাত গ্ৰেফতার

আপডেট সময় ০৩:৩৮:৫৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

কুমিল্লার চান্দিনায় অভিনব কায়দায় গরু চুরি করে মিনি কাভার্ডভ্যানে করে নেওয়ার সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রবিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) ভোরে আন্ত: জেলা ডাকাত দলের পাঁচ সদস্যকে আটক করে চান্দিনা থানা পুলিশ। তাদের কে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এঘটনায় চান্দিনা থানার সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রিয়াজুল ইসলাম দৈনিক মুক্তখবর কে জানান, রাত্রিকালীন টহল টিম ভোর ৪টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি উপজেলার মহিচাইল জামিরাপাড়া এলাকা থেকে অভিনব একটি মিনি কাভার্ডভ্যানে করে চোরাই গরু পাচার হচ্ছে। পরে ওই কাভার্ডভ্যানটি আটকের জন্য চেষ্টা করি। তারা আমাদের উপস্থিতি টের পেয়ে দ্রুত মাধাইয়ার বাস স্টেশনের দিকে ছুটে চলছিল।

আমি অপর একটি টহলটিম এস.আই সৈকত দাশগুপ্ত স্যারকে মাধাইয়া এলাকায় বেরিকেট দেওয়ার জন্য জানাই। তিনি মাধাইয়া বাস স্টেশনে আটকের চেষ্টা করলে চোর চক্র মিনি কাভার্ডভ্যানে পুলিশের টহলরত মারুতি গাড়ি ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে আমরা ৩টি টিম ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চান্দিনা উপজেলার মাধাইয়া এলাকা থেকে ধাওয়া করে দেবীদ্বার উপজেলার ভানী ইউনিয়নের পাঁচরঙ্গি গ্রামে পৌঁছালে জনগণ ডাকাত সদস্যদের ঘিরে ফেলে মারধর শুরু করে। জনগণের রোষানল থেকে তাদেরকে বাঁচাতে গিয়ে ধস্তাধস্তিতে চার পুলিশ সদস্য আহত হয়।

অভিযানে দুই বাছুরসহ ২টি উন্নত জাতের গাভী, চোরাই কাজে ব্যবহৃত একটি মিনি কাভার্ডভ্যান উদ্ধার করে পুলিশ। পাঁচজনকে আটক করার পর জানা গেলো তারা আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। আটককৃতরা হলো- কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার পূর্ব কুনপাড়া গ্রামের মো. লতিফ মিয়ার ছেলে মো. জহির (৪০), চান্দিনার তীরচর গ্রামের মৃত আব্দুল আউয়াল এর ছেলে নজরুল ইসলাম (৪৭), হোসেনপুর গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে শাহ আলম (৪২), পরচঙ্গা গ্রামের মৃত আব্দুল রব এর ছেলে কাউছার (৪০), দাউদকান্দি উপজেলার আউটবাগ নগরপাড়া গ্রামের মৃত জলিল সরকারের ছেলে জামাল (৩৭)। তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ডাকাতি মামলা রয়েছে।

আহত চার পুলিশ সদস্য হলেন- চান্দিনা থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) সৈকত দাশগুপ্ত, সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রিয়াজুল ইসলাম, (এএসএই) মো. আব্দুল্লাহ, কনস্ট্রেবল শামীম। চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মো. সাহাবুদ্দীন খাঁন দৈনিক মুক্তখবর কে জানান, প্রাথমিক ভাবে আমরা তাদেরকে চোর চক্রের সদস্য ধারণা করলেও পরবর্তীতে তাদের তথ্য যাচাই করে জানতে পারি তারা আন্তু:জেলা ডাকাত দলের সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক ডাকাতি মামলা রয়েছে। গরু গুলোর তথ্য চেয়ে আমরা বিভিন্ন থানা এলাকায় ম্যাসেজ দিলে নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানা থেকে জানানো হয় ওই থানার মোল্লাপাড়া এলাকা থেকে গরু চুরি হয়েছে।

এ ঘটনায় ওই থানায় একটি জিডি করেন গরুর মালিক ডালিম আল দ্বীন নামের এক ব্যক্তি। পরবর্তীতে গরুর মালিক থানায় এসে তাদের চোরাই হওয়া গরু গুলো সনাক্ত করেন। ওসি আরও জানান, গরু গুলো চান্দিনার মহিচাইল এলাকায় বিক্রির জন্য নিয়ে আসার সময় আমাদের টহলটিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের পিছু নেয়, ‘এসময় তারা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তাদের কাছ থেকে আরও তথ্য উদঘটনের জন্য রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে তিনি দৈনিক মুক্তখবর কে আরও বলেন, জনগণের রোষানল থেকে তাদেরকে বাঁচাতে গিয়ে ধস্তাধস্তিতে আমাদের চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। তাদেরকে চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে।