ঢাকা ০৭:০৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৫ জুন ২০২৩, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

দ্বিতীয়বার করোনায় আক্রান্ত ফাইজারের সিইও

কোভিড-১৯ টিকা প্রস্তুতকারী সংস্থা ফাইজারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আলবার্ট বোরলা আবারও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) নিজেই এই তথ্য জানিয়েছেন তিনি।

এনিয়ে দ্বিতীয়বার সংক্রামক এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলেন তিনি। রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বোরলা এক বিবৃতিতে বলেছেন- ‘(করোনায় আক্রান্ত হলেও) আমি সুস্থ বোধ করছি এবং উপসর্গ মুক্ত রয়েছি।’

রয়টার্স বলছে, ৬০ বছর বয়সী আলবার্ট বোরলা গত আগস্টে প্রথমবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং নিজের কোম্পানির কোভিড-১৯ মুখে খাওয়ার অ্যান্টিভাইরাল চিকিৎসা প্যাক্সলোভিডের কোর্স শুরু করেছিলেন।

প্যাক্সলোভিড মূলত একটি অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ যা বয়স্ক রোগীদের মতো উচ্চ-ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তিদের চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত হয়। ফাইজার ও এর জার্মান অংশীদার বায়োএনটেক’র তৈরি কোভিড ভ্যাকসিনের চারটি ডোজ নিয়েছেন আলবার্ট বোরলা। তবে ফাইজারের এই প্রধান নির্বাহী বলেছেন, তিনি এখনও নতুন বাইভ্যালেন্ট বুস্টার ডোজ নেননি।

শনিবার বোরলা আরও বলেন, ‘আমি এখনও নতুন বাইভ্যালেন্ট বুস্টার ডোজ গ্রহণ করিনি, কারণ আমি গত আগস্টে করোনায় আক্রান্ত হই এবং সিডিসি’র নির্দেশনা অনুসারে এই ডোজ গ্রহণের জন্য (ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর) তিন মাস অপেক্ষা করছিলাম।’

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় একটি স্বাস্থ্য সংস্থা গত সপ্তাহে জানায়, করোনা টিকার তথাকথিত বাইভ্যালেন্ট টিকা প্রয়োগের জন্য ২৫ মিলিয়নেরও বেশি ডোজ পাঠানো হয়েছে।এসব টিকার বেশিরভাগই ফাইজার/বায়োটেক-এর ভ্যাকসিন। অন্যদিকে মডার্নাও তাদের এই ভ্যাকসিনের উৎপাদন বাড়িয়েছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

Tag :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

দ্বিতীয়বার করোনায় আক্রান্ত ফাইজারের সিইও

আপডেট সময় ১১:৪৭:১৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

কোভিড-১৯ টিকা প্রস্তুতকারী সংস্থা ফাইজারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আলবার্ট বোরলা আবারও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) নিজেই এই তথ্য জানিয়েছেন তিনি।

এনিয়ে দ্বিতীয়বার সংক্রামক এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলেন তিনি। রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বোরলা এক বিবৃতিতে বলেছেন- ‘(করোনায় আক্রান্ত হলেও) আমি সুস্থ বোধ করছি এবং উপসর্গ মুক্ত রয়েছি।’

রয়টার্স বলছে, ৬০ বছর বয়সী আলবার্ট বোরলা গত আগস্টে প্রথমবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং নিজের কোম্পানির কোভিড-১৯ মুখে খাওয়ার অ্যান্টিভাইরাল চিকিৎসা প্যাক্সলোভিডের কোর্স শুরু করেছিলেন।

প্যাক্সলোভিড মূলত একটি অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ যা বয়স্ক রোগীদের মতো উচ্চ-ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তিদের চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত হয়। ফাইজার ও এর জার্মান অংশীদার বায়োএনটেক’র তৈরি কোভিড ভ্যাকসিনের চারটি ডোজ নিয়েছেন আলবার্ট বোরলা। তবে ফাইজারের এই প্রধান নির্বাহী বলেছেন, তিনি এখনও নতুন বাইভ্যালেন্ট বুস্টার ডোজ নেননি।

শনিবার বোরলা আরও বলেন, ‘আমি এখনও নতুন বাইভ্যালেন্ট বুস্টার ডোজ গ্রহণ করিনি, কারণ আমি গত আগস্টে করোনায় আক্রান্ত হই এবং সিডিসি’র নির্দেশনা অনুসারে এই ডোজ গ্রহণের জন্য (ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর) তিন মাস অপেক্ষা করছিলাম।’

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় একটি স্বাস্থ্য সংস্থা গত সপ্তাহে জানায়, করোনা টিকার তথাকথিত বাইভ্যালেন্ট টিকা প্রয়োগের জন্য ২৫ মিলিয়নেরও বেশি ডোজ পাঠানো হয়েছে।এসব টিকার বেশিরভাগই ফাইজার/বায়োটেক-এর ভ্যাকসিন। অন্যদিকে মডার্নাও তাদের এই ভ্যাকসিনের উৎপাদন বাড়িয়েছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।